1. admin@dailymuktirshongbadbd.com : Dailymuktirshongbadofficial :
  2. mridapress@gmail.com : mridapress@gmail.com :
শুক্রবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২২, ১০:৪১ অপরাহ্ন
নোটিশঃ
আপনার সংবাদ প্রচারে বিজ্ঞাপন দিন
শিরোনামঃ
হীড বাংলাদেশ নামক প্রতিষ্ঠানের নির্বাহী পরিচালক এর আজ শুভ জন্মদিন বরগুনায় যুদ্ধ অপরাধী ও রাজাকারের তালিকা প্রকাশ করার দাবিতে মানববন্ধন ও স্মারকলিপি/নিউজ বরগুনায় ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলা ও ইলিশ উৎসব ২০২২ অনুষ্ঠিত/ মুক্তির সংবাদ গৌরনদীতে অসহায় পরিবারের পানের বরজ ভাংচুর ও জমি দখল, ৯৯৯ এ ফোন দিয়ে সময়িক রক্ষা মেলে সমাজ উন্নয়ন অ্যাওয়ার্ড পাচ্ছেন গোল্ডেন ঈগল ওপেন এয়ার স্কাউট গ্রুপের স্কাউট সদস্য মো: তানভীর নেওয়াজ পানিতে ডুবে শিশু মৃত্যু প্রতিরোধ বিষয়ক সাংবাদিকদের /news বকেয়া দুই মাসের বেতন উদ্ধার ছাত্রলীগ নেতা সাদ্দামের সহযোগিতায়। কালশী বস্তিতে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে আগুন নিভানো ও উদ্ধার কাজে রোভার স্কাউটদের অংশগ্রহণ। পাথরঘাটায় দেওয়ানি মামলা চলমান” জোরপূর্বক জমি দখলের পাঁয়তারা বরগুনা জেলা সংবাদদাতা: বরগুনার পাথরঘাটায় জোরপূর্বক জমি দখলের পাঁয়তারার অভিযোগ উঠেছে এলাকার প্রভাবশালী ভুমি দস্যু শাহ আলম খান গংদের বিরুদ্ধে। ঘটনাটি পাথরঘাটা পৌর সভার ৯নং ওয়ার্ডে। এব্যাপারে ভুক্তভোগী মোঃ জব্বার হাওলাদার গংরা মোকাম বরগুনা ,পাথরঘাটা সহকারী জজ আদালতে (স্বত্ত্ব ঘোষণা সহ বন্টন) ৩৪৭ জনকে বিবাদী করে দেওয়ানি মোকদ্দমা নং ১৯৪/২০২১ ইং মামলা দায়ের করেছেন। উক্ত মোকদ্দমা টি চলমান রয়েছে। প্রতিপক্ষ শাহ আলম খান আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল না হয়ে জোর পূর্বক জব্বার হাওলাদার গংদের কবলা ও রেকর্ডিও মালিকানা প্রায় ২০০ বছরের ভোগদখলীয় জমি দখলের পাঁয়তারা করেন জানান ভুক্তভোগীরা। স্থানীয়রা বলেন , দীর্ঘদিন যাবত জব্বার গংরা জমি চাষাবাদ ও বসতবাড়ি নির্মাণ করে আসছে। কিন্তু শাহ আলম গংরা জমি পাবেনা বুঝতে পেরেই এক শ্রেণীর অসাধু কুচক্রী মহলের দ্বারপ্রান্ত হয়ে শাহ আলম খান গংদের পক্ষের মরিয়ম নামের একজন জমির মালিক সেজে কাগজপত্র বিহীন গত ০২ আগষ্ট ২০২২ ইং তরিকুল ইসলাম আসাদুজ্জামান নামের এক ব্যক্তিকে বায়না রেজিস্ট্রি করে দেন জব্বার হাওলাদার গংদের ভোগদখলীয় জমি । ক্ষমতাসীনরা ভুয়া বায়না কাগজপত্র পেয়ে ক্ষমতার প্রভাব দেখিয়ে দেওয়ানি বন্টন মামলা চলমান থাকার পরেও তারা জমি দখলের পাঁয়তারা চালায়। এ ব্যাপারে ভুক্তভোগী মোঃ জব্বার হাওলাদার গংরা প্রশাসনের সহযোগিতা চান। তবে অভিযুক্ত শাহ আলম খান গংরা, উল্লেখিত দেওয়ানি মামলায় এপিয়ার হয়েছেন বলে জানান তারা। মুক্তির সংবাদ গাজীপুর মহানগর কাশিমপুর উপজেলার ৩ নং ওয়ার্ড এর মানবতার সেবক ইদ্রিস মোল্লা

শৈলকূপায় হত্যা মামলার আসামী পেলেন নৌকার মনোনয়ন! তৃণমুল আ,লীগে ক্ষোভ। মুক্তির সংবাদ

  • আপডেট সময় শুক্রবার, ১৪ জানুয়ারী, ২০২২
  • ২০৭ এতক্ষন দেখবেন

মোঃ ইনছান আলী
ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধিঃ

সপ্তম ধাপে অনুষ্ঠিত ঝিনাইদহের শৈলকূপা উপজেলার মনোহারপুর ইউনিয়নে নৌকার মনোনয়ন পেয়েছেন হত্যা মামলার আসামী জাহিদুল ইসলাম জাহিদ। শৈলকূপা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও বর্তমান যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক জাহিদ রাশিদুল ইসলাম উকিল মৃধা হত্যা মামলার ২৪ নং আসামী। তবে তিনি এ মামলায় জামিনে আছেন। হত্যা মামলার আসামী নৌকার মাঝি হওয়ায় এ নিয়ে দলের মধ্যে শোরগোল শুরু হয়েছে। তৃণমূলে বিভেদ ও দ্বন্দ্ব ছড়িয়ে পড়েছে। প্রতিপক্ষরা নৌকার মনোনয়ন বাতিলের দাবী জানিয়ে মাঠ গরম করছেন। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, শৈলকূপার দামুকদিয়া গ্রামে গত বছরের ২৫ জুলাই পুর্ব বিরোধের জের ধরে রাশিদুল ইসলাম ওরফে উকিল মৃধা (৪৫) নামে এক আওয়ামী লীগ কর্মী খুন হন। হত্যাকাণ্ডের পর গ্রামটিতে ব্যাপক ভাংচুর ও লুটপাট করা হয় বলে অভিযোগ। উকিল মৃধা হত্যার জন্য আওয়ামী লীগের জাহিদ গ্রুপকে দায়ী করেন নিহতের ভাতিজা আজমীর শরীফ। তিনি জানান, গত বছরের ২৩ জুলাই আধিপত্য বিস্তার নিয়ে গ্রামে মারামারি হয়। বিষয়টি মীমাংসার জন্য ২৫ জুলাই রাতে শৈলকূপা থানা পুলিশের আহবানে সাড়া দিয়ে বৈঠকে যোগ দিতে রওনা দেন উকিল মৃধা। কিন্তু পথের মধ্যেই তাকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় নিহতের স্ত্রী মনোহরপুর ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার তানিয়াা খাতুন ২৬ জুলাই বাদী হয়ে ২৮ জনের নাম উল্লেখ করে একটি হত্যা মামলা করেন। এই মামলায় নৌকার মনোনয়নপ্রাপ্ত যুবলীগ নেতা জাহিদুল ইসলাম জাহিদ ২৪ নং আসামী। একজন হত্যা মামলার আসামী কি ভাবে নৌকার মনোনয়ন পেলেন তা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন শৈলকূপা উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক ও মনোহরপুর ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান মোস্তফা আরিফ রেজা মন্নু। তিনি বলেন ১৯৮৬ সাল থেকে তিনি অধ্যক্ষ কামরুজ্জামানের হাত ধরে আওয়ামী রাজনীতিতে সক্রিয় হন। ১৯৯৮ সালে বিএনপির শক্তিমান ইউপি প্রার্থীকে হারিয়ে প্রথম চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। ১৯ বছর উপজেলা আওয়ামলীগের সদস্য থাকার পর ২০১৫ সালে ডেলিগেটদের সরাসরি ভোটে মন্নু উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। তিনি অভিযোগ করেন, ২০১৮ সালে উপজেলা নির্বাচনে নৌকা প্রতিকের পক্ষে কাজ করায় শৈলকূপার এক প্রভাবশালী নেতার রোষানলে পড়েন। মন্নু দাবী করেন তিনি জীবনে কখনো নৌকার বিপক্ষে ভোট করিনি। অথচ জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সম্পাদকের রেজুলেশন বাদ দিয়ে জালিয়াতির মাধ্যমে আমার মনোনয়ন থেকে বঞ্চিত করা হয়েছে। এ বিষয়ে মনোনয়ন বোর্ডের কাছে আপীল করেছেন বলে জানান মন্নু। তিনি আরো বলেন, তার পিতা একজন মুক্তিযোদ্ধা। যার সনদ দিয়েছেন স্থানীয় এমপি আব্দুল হাই। এছাড়া তার পরিবারে কোন জামায়াত বিএনপি নেই। বিষয়টি নিয়ে নৌকার মনোনয় প্রাপ্ত যুবলীগ নেতা জাহিদুল ইসলাম জাহিদ বলেন, ষড়যন্ত্র করে আমাকে হত্যা মামলার আসামী করা হয়েছে। ঘটনার দিন তিনি শৈলকুপা থানায় তৎকালীন ওসি জাহাঙ্গীর আলমের সঙ্গে একটি শালিস বেঠকে ছিলেন। পুলিশ আসল সত্যটি জানে বিধায় দ্রুত তিনি জামিন পান। তিনি যে বকুল মৃধা হত্যার সঙ্গে জড়িত না তা ইউনিয়নের শিশু থেকে বৃদ্ধ পর্যন্ত কেউ বিশ্বাস করেনি। তিনি দাবী করেন তার প্রতিপক্ষ বর্তমান চেয়ারম্যান মোস্তফা আরিফ রেজা মন্নু তাকে খুনের মামলায় ফাঁসিয়েছেন, যাতে নৌকার মনোনয়ন না পায়।তিনি বলেন, মনোহরপুর ইউনিয়নের তৃনমুলসহ সাধারণ ভোটারদের ৯৫ ভাগ তার সঙ্গে আছেন। তিনি বিপুল ভোটে জয়ী হবেন। কোন ষড়যন্ত্র তাকে দমাতে পারবে না। তিনি বলেন মোস্তফা আরিফ রেজা মন্নুর পরিবারে রাজাকার, বিএনপি ও জামায়াত রয়েছে বলে দাবী করেন জাহিদ। উল্লেখ্য সপ্তম ধাপে অনুষ্ঠিত শৈলকুপার মনোহরপুর ইউনিয়নে আগামী ৭ ফেব্রয়ারি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটেগরির আরও খবর

পাথরঘাটায় দেওয়ানি মামলা চলমান” জোরপূর্বক জমি দখলের পাঁয়তারা বরগুনা জেলা সংবাদদাতা: বরগুনার পাথরঘাটায় জোরপূর্বক জমি দখলের পাঁয়তারার অভিযোগ উঠেছে এলাকার প্রভাবশালী ভুমি দস্যু শাহ আলম খান গংদের বিরুদ্ধে। ঘটনাটি পাথরঘাটা পৌর সভার ৯নং ওয়ার্ডে। এব্যাপারে ভুক্তভোগী মোঃ জব্বার হাওলাদার গংরা মোকাম বরগুনা ,পাথরঘাটা সহকারী জজ আদালতে (স্বত্ত্ব ঘোষণা সহ বন্টন) ৩৪৭ জনকে বিবাদী করে দেওয়ানি মোকদ্দমা নং ১৯৪/২০২১ ইং মামলা দায়ের করেছেন। উক্ত মোকদ্দমা টি চলমান রয়েছে। প্রতিপক্ষ শাহ আলম খান আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল না হয়ে জোর পূর্বক জব্বার হাওলাদার গংদের কবলা ও রেকর্ডিও মালিকানা প্রায় ২০০ বছরের ভোগদখলীয় জমি দখলের পাঁয়তারা করেন জানান ভুক্তভোগীরা। স্থানীয়রা বলেন , দীর্ঘদিন যাবত জব্বার গংরা জমি চাষাবাদ ও বসতবাড়ি নির্মাণ করে আসছে। কিন্তু শাহ আলম গংরা জমি পাবেনা বুঝতে পেরেই এক শ্রেণীর অসাধু কুচক্রী মহলের দ্বারপ্রান্ত হয়ে শাহ আলম খান গংদের পক্ষের মরিয়ম নামের একজন জমির মালিক সেজে কাগজপত্র বিহীন গত ০২ আগষ্ট ২০২২ ইং তরিকুল ইসলাম আসাদুজ্জামান নামের এক ব্যক্তিকে বায়না রেজিস্ট্রি করে দেন জব্বার হাওলাদার গংদের ভোগদখলীয় জমি । ক্ষমতাসীনরা ভুয়া বায়না কাগজপত্র পেয়ে ক্ষমতার প্রভাব দেখিয়ে দেওয়ানি বন্টন মামলা চলমান থাকার পরেও তারা জমি দখলের পাঁয়তারা চালায়। এ ব্যাপারে ভুক্তভোগী মোঃ জব্বার হাওলাদার গংরা প্রশাসনের সহযোগিতা চান। তবে অভিযুক্ত শাহ আলম খান গংরা, উল্লেখিত দেওয়ানি মামলায় এপিয়ার হয়েছেন বলে জানান তারা। মুক্তির সংবাদ