1. admin@dailymuktirshongbadbd.com : Dailymuktirshongbadofficial :
  2. mridapress@gmail.com : mridapress@gmail.com :
শুক্রবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২২, ১০:১০ অপরাহ্ন
নোটিশঃ
আপনার সংবাদ প্রচারে বিজ্ঞাপন দিন
শিরোনামঃ
হীড বাংলাদেশ নামক প্রতিষ্ঠানের নির্বাহী পরিচালক এর আজ শুভ জন্মদিন বরগুনায় যুদ্ধ অপরাধী ও রাজাকারের তালিকা প্রকাশ করার দাবিতে মানববন্ধন ও স্মারকলিপি/নিউজ বরগুনায় ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলা ও ইলিশ উৎসব ২০২২ অনুষ্ঠিত/ মুক্তির সংবাদ গৌরনদীতে অসহায় পরিবারের পানের বরজ ভাংচুর ও জমি দখল, ৯৯৯ এ ফোন দিয়ে সময়িক রক্ষা মেলে সমাজ উন্নয়ন অ্যাওয়ার্ড পাচ্ছেন গোল্ডেন ঈগল ওপেন এয়ার স্কাউট গ্রুপের স্কাউট সদস্য মো: তানভীর নেওয়াজ পানিতে ডুবে শিশু মৃত্যু প্রতিরোধ বিষয়ক সাংবাদিকদের /news বকেয়া দুই মাসের বেতন উদ্ধার ছাত্রলীগ নেতা সাদ্দামের সহযোগিতায়। কালশী বস্তিতে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে আগুন নিভানো ও উদ্ধার কাজে রোভার স্কাউটদের অংশগ্রহণ। পাথরঘাটায় দেওয়ানি মামলা চলমান” জোরপূর্বক জমি দখলের পাঁয়তারা বরগুনা জেলা সংবাদদাতা: বরগুনার পাথরঘাটায় জোরপূর্বক জমি দখলের পাঁয়তারার অভিযোগ উঠেছে এলাকার প্রভাবশালী ভুমি দস্যু শাহ আলম খান গংদের বিরুদ্ধে। ঘটনাটি পাথরঘাটা পৌর সভার ৯নং ওয়ার্ডে। এব্যাপারে ভুক্তভোগী মোঃ জব্বার হাওলাদার গংরা মোকাম বরগুনা ,পাথরঘাটা সহকারী জজ আদালতে (স্বত্ত্ব ঘোষণা সহ বন্টন) ৩৪৭ জনকে বিবাদী করে দেওয়ানি মোকদ্দমা নং ১৯৪/২০২১ ইং মামলা দায়ের করেছেন। উক্ত মোকদ্দমা টি চলমান রয়েছে। প্রতিপক্ষ শাহ আলম খান আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল না হয়ে জোর পূর্বক জব্বার হাওলাদার গংদের কবলা ও রেকর্ডিও মালিকানা প্রায় ২০০ বছরের ভোগদখলীয় জমি দখলের পাঁয়তারা করেন জানান ভুক্তভোগীরা। স্থানীয়রা বলেন , দীর্ঘদিন যাবত জব্বার গংরা জমি চাষাবাদ ও বসতবাড়ি নির্মাণ করে আসছে। কিন্তু শাহ আলম গংরা জমি পাবেনা বুঝতে পেরেই এক শ্রেণীর অসাধু কুচক্রী মহলের দ্বারপ্রান্ত হয়ে শাহ আলম খান গংদের পক্ষের মরিয়ম নামের একজন জমির মালিক সেজে কাগজপত্র বিহীন গত ০২ আগষ্ট ২০২২ ইং তরিকুল ইসলাম আসাদুজ্জামান নামের এক ব্যক্তিকে বায়না রেজিস্ট্রি করে দেন জব্বার হাওলাদার গংদের ভোগদখলীয় জমি । ক্ষমতাসীনরা ভুয়া বায়না কাগজপত্র পেয়ে ক্ষমতার প্রভাব দেখিয়ে দেওয়ানি বন্টন মামলা চলমান থাকার পরেও তারা জমি দখলের পাঁয়তারা চালায়। এ ব্যাপারে ভুক্তভোগী মোঃ জব্বার হাওলাদার গংরা প্রশাসনের সহযোগিতা চান। তবে অভিযুক্ত শাহ আলম খান গংরা, উল্লেখিত দেওয়ানি মামলায় এপিয়ার হয়েছেন বলে জানান তারা। মুক্তির সংবাদ গাজীপুর মহানগর কাশিমপুর উপজেলার ৩ নং ওয়ার্ড এর মানবতার সেবক ইদ্রিস মোল্লা

বঙ্গবন্ধু শুধু নামিই নয়, ইতিহাস”অ্যাডভোকেট ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভু-এমপি / মুক্তির সংবাদ

  • আপডেট সময় মঙ্গলবার, ১১ জানুয়ারী, ২০২২
  • ২৫৩ এতক্ষন দেখবেন


সোহরাব বরগুনা জেলা সংবাদদাতা:
বরগুনা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ,মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও সাবেক মন্ত্রী ,বরগুনা-১ আসনের সংসদ সদস্য ,অ্যাডভোকেট ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভু এমপি , ১০ জানুয়ারি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান-এর ঐতিহাসিক স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে সাংবাদিকদের সৌজন্য সাক্ষাৎকালে তিনি বলেন, বাঙালি জাতির অবিসংবাদিত নেতা স্বাধীন বাংলাদেশের মহান স্থপতি পাকিস্তানের কারাগারের নির্জন প্রকোষ্ঠ থেকে মুক্তি লাভ করে ১৯৭২ সালের এই দিনে তার স্বপ্নের স্বাধীন-সার্বভৌম বাংলাদেশে ফিরে আসেন।
ঐতিহাসিক ১০ই জানুয়ারি মহান মুক্তিযুদ্ধের ধারাবাহিক ইতিহাসের একটি অনন্য মাইলফলক। ১৯৪৭ সালে ভ্রান্ত দ্বি-জাতি তত্ত্বের ভিত্তিতে দেশভাগের মধ্য দিয়ে পাকিস্তানি শাসকগোষ্ঠী পূর্ব বাংলার মানুষকে নতুন করে পরাধীনতার নিকষ অন্ধকারে নিপতিত করে। ইতিহাসের মহানায়ক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে দীর্ঘ আন্দোলন-সংগ্রামের পথ-পরিক্রমায় পাকিস্তানি শাসকগোষ্ঠীর বিরুদ্ধে দুর্বার প্রতিরোধ গড়ে তোলে বাঙালি জাতি। বাঙালি জাতিকে মুক্তির মহামন্ত্রে উজ্জীবিত করে স্বাধীনতা সংগ্রাম ও মুক্তিযুদ্ধের পথে এগিয়ে নিয়ে যান বঙ্গবন্ধু।
১৯৭১ সালের ৭ মার্চ এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম’ খ্যাত বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ভাষণের কালজয়ী আহ্বান এবং পাকিস্তানি শাসকগোষ্ঠীর বিরুদ্ধে বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে সর্বাত্মক অসহযোগ আন্দোলনের মধ্য দিয়ে স্বাধীনতা অর্জনের চূড়ান্ত লক্ষ্যে ঐক্যবদ্ধ হয়ে ওঠে বাঙালি জাতি। ১৯৭১ সালের ২৫ শে মার্চ কালো রাতে পাকিস্তানি হানাদারবাহিনী নিরস্ত্র বাঙালির ওপর নির্বিচারে গণহত্যা শুরু করলে ২৬ শে মার্চ প্রথম প্রহরে বাঙালি জাতির অবিসংবাদিত নেতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাংলাদেশের স্বাধীনতার ঘোষণা করেন।
বাংলাদেশের স্বাধীনতা ঘোষণার পর পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী বঙ্গবন্ধুকে গ্রেফতার করে পাকিস্তানের কারাগারে বন্দি করে রাখে। বঙ্গবন্ধুর নির্দেশিত পথে বাঙালি জাতি দখলদার পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর বিরুদ্ধে দীর্ঘ ৯ মাসের রক্তক্ষয়ী যুদ্ধের মধ্য দিয়ে ১৯৭১ সালের ১৬ই ডিসেম্বর বিজয় অর্জন করে। বিশ্ব-মানচিত্রে অভ্যুদ্বয় ঘটে স্বাধীন ও সার্বভৌম বাংলাদেশ রাষ্ট্রের।
১৬ই ডিসেম্বর পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর আত্মসমর্পণের মধ্য দিয়ে কাঙ্ক্ষিত বিজয় অর্জিত হলেও বাঙালি জাতির হৃদস্পন্দন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান তখনও পাকিস্তানের কারাগারে বন্দি থাকায় অপূর্ণতার বিদগ্ধ-বিষাদে নিমজ্জিত ছিল সদ্য স্বাধীন ভূখণ্ডের আদিগন্ত আকাশ। ১৯৭২ সালের ১০ই জানুয়ারি মুক্তিযুদ্ধের সর্বাধিনায়ক সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান পাকিস্তানের কারাগার থেকে মুক্ত-স্বাধীন বাংলাদেশে ফিরে আসার মাধ্যমে সে বিজয় পূর্ণতা লাভ করে।
২৯০ দিন পাকিস্তানের কারাগারে প্রতি মুহূর্তে মৃত্যুর প্রহর গুনতে গুনতে লন্ডন-দিল্লি হয়ে মুক্ত স্বাধীন স্বদেশের মাটিতে ফিরে আসেন বাঙালির ইতিহাসের বরপুত্র বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। এইদিন স্বাধীন বাংলার আকাশে সূর্যোদয়ের মতো চির ভাস্বর-উজ্জ্বল মহান নেতা ইতিহাসের মহানায়ক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ফিরে আসেন তার প্রিয় মাতৃভূমি বাংলাদেশে। স্বদেশের মাটি ছুঁয়ে বাংলাদেশের ইতিহাসের নির্মাতা শিশুর মতো আবেগে আকুল হলেন। আনন্দ-বেদনার অশ্রুধারা নামলো তার দু’চোখ বেয়ে। প্রিয় নেতাকে ফিরে পেয়ে সেদিন সাড়ে সাত কোটি বাঙালি আনন্দাশ্রুতে সিক্ত হয়ে জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু ধ্বনিতে প্রকম্পিত করে তোলে বাংলার আকাশ-বাতাস।
জনগণনন্দিত শেখ মুজিব সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে দাঁড়িয়ে তাঁর ঐতিহাসিক ধ্রুপদি বক্তৃতায় বলেন, যে মাটিকে আমি এতো ভালবাসি, যে মানুষকে আমি এতো ভালবাসি, যে জাতিকে আমি এতো ভালবাসি, আমি জানতাম না সে বাংলায় আমি যেতে পারবো কি না। আজ আমি বাংলায় ফিরে এসেছি, বাংলার ভাইয়েদের কাছে, মায়েদের কাছে, বোনদের কাছে। বাংলা আমার স্বাধীন, বাংলাদেশ আজ স্বাধীন।
দীর্ঘ সংগ্রাম, ত্যাগ-তিতীক্ষা, আন্দোলন ও আত্মত্যাগের মাধ্যমে মুক্তিযুদ্ধে বির্জয় অর্জনের পর বিধ্বস্ত বাংলাদেশকে সামনে এগিয়ে নেওয়ার প্রশ্নে বাঙালি জাতি যখন কঠিন এক বাস্তবতার মুখোমুখি তখন পাকিস্তানের বন্দিদশা থেকে মুক্তি পেয়ে ১৯৭২ সালের ১০ই জানুয়ারি স্বদেশ প্রত্যাবর্তন করেন সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান।
বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন যুদ্ধ-বিধ্বস্ত সদ্য স্বাধীন বাঙালি জাতির হৃদয়ে প্রজ্জ্বলিত করেছিল অনুপ্রেরণার দেদীপ্যমান আলোক শিখা। বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তনকে আখ্যায়িত করা হয়েছিল ‘‘অন্ধকার হতে আলোর পথে যাত্রা হিসেবে”। সেই থেকে প্রতিবছর কৃতজ্ঞ বাঙালি জাতি নানা আয়োজনে পালন করে আসছে বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস। ১০ জানুয়ারি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান-এর ঐতিহাসিক স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটেগরির আরও খবর

পাথরঘাটায় দেওয়ানি মামলা চলমান” জোরপূর্বক জমি দখলের পাঁয়তারা বরগুনা জেলা সংবাদদাতা: বরগুনার পাথরঘাটায় জোরপূর্বক জমি দখলের পাঁয়তারার অভিযোগ উঠেছে এলাকার প্রভাবশালী ভুমি দস্যু শাহ আলম খান গংদের বিরুদ্ধে। ঘটনাটি পাথরঘাটা পৌর সভার ৯নং ওয়ার্ডে। এব্যাপারে ভুক্তভোগী মোঃ জব্বার হাওলাদার গংরা মোকাম বরগুনা ,পাথরঘাটা সহকারী জজ আদালতে (স্বত্ত্ব ঘোষণা সহ বন্টন) ৩৪৭ জনকে বিবাদী করে দেওয়ানি মোকদ্দমা নং ১৯৪/২০২১ ইং মামলা দায়ের করেছেন। উক্ত মোকদ্দমা টি চলমান রয়েছে। প্রতিপক্ষ শাহ আলম খান আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল না হয়ে জোর পূর্বক জব্বার হাওলাদার গংদের কবলা ও রেকর্ডিও মালিকানা প্রায় ২০০ বছরের ভোগদখলীয় জমি দখলের পাঁয়তারা করেন জানান ভুক্তভোগীরা। স্থানীয়রা বলেন , দীর্ঘদিন যাবত জব্বার গংরা জমি চাষাবাদ ও বসতবাড়ি নির্মাণ করে আসছে। কিন্তু শাহ আলম গংরা জমি পাবেনা বুঝতে পেরেই এক শ্রেণীর অসাধু কুচক্রী মহলের দ্বারপ্রান্ত হয়ে শাহ আলম খান গংদের পক্ষের মরিয়ম নামের একজন জমির মালিক সেজে কাগজপত্র বিহীন গত ০২ আগষ্ট ২০২২ ইং তরিকুল ইসলাম আসাদুজ্জামান নামের এক ব্যক্তিকে বায়না রেজিস্ট্রি করে দেন জব্বার হাওলাদার গংদের ভোগদখলীয় জমি । ক্ষমতাসীনরা ভুয়া বায়না কাগজপত্র পেয়ে ক্ষমতার প্রভাব দেখিয়ে দেওয়ানি বন্টন মামলা চলমান থাকার পরেও তারা জমি দখলের পাঁয়তারা চালায়। এ ব্যাপারে ভুক্তভোগী মোঃ জব্বার হাওলাদার গংরা প্রশাসনের সহযোগিতা চান। তবে অভিযুক্ত শাহ আলম খান গংরা, উল্লেখিত দেওয়ানি মামলায় এপিয়ার হয়েছেন বলে জানান তারা। মুক্তির সংবাদ