1. muktirshongbad@gmail.com : 20dailymuktirshongbadbd.com :
  2. miliakthar868@gmail.com : Editor :
  3. mdkaiumjsc01643@gmail.com : Kaium Hossain :
  4. ramjanbhuiyan84@gmail.com : ramjanbhuiyan :
শনিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৪:১৮ অপরাহ্ন
নোটিশঃ
বহুল জনপ্রিয় দৈনিক মুক্তির সংবাদ অনলাইন পত্রিকায় সংবাদকর্মী নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে।  বাংলাদেশে বিভিন্ন জেলায়, উপজেলায়,দৈনিক মুক্তির সংবাদ পত্রিকা সংবাদকর্মী নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে। সারা বাংলাদেশে বিভিন্ন জেলায়, উপজেলায়, জেলা ব্যুরো প্রধান ও বিভাগীয় ব্যুরো প্রধানে কাজ আগ্রহী প্রার্থীগণ সিভি পাঠাতে পারেন। ন্যূনতম যোগ্যতা এস এস সি পাশ।চূড়ান্ত নির্বাচন প্রক্রিয়া:রিক্রুটিং টিম কোন প্রকার একাডেমিক পরীক্ষার ফল বিবেচনা করবে না। কর্মঠ, সৎ ও কর্তৃপক্ষের প্রতি অনুগত প্রার্থীদের বাছাই করা হবে।E-mail :  muktirshongbad@gmail.com যোগাযোগ নাম্বার:01752602939/01710006400 ।সম্পাদক ও প্রকাশক,মোঃ মাসুদ মৃধাঃ 01933609066

কাপাসিয়ার বহুল আলোচিত ইদ্রিস হত্যা মামলার রহস্য উদ্ঘাটন করল পিবিআই, গাজীপুর। দৈনিক মুক্তির সংবাদ

  • খবর পাবলিসের সময় বৃহস্পতিবার, ২৬ আগস্ট, ২০২১
  • ৩৩ বার পোস্টটি পড়া হয়েছে

 

জাকিরুল ইসলাম গাজীপুর জেলা প্রতিনিধিঃ গাজীপুর জেলার কাপাসিয়া থানার সালুয়াটেকি এলাকার বহুল আলোচিত ইদ্রিস হত্যা মামলার রহস্য উদঘাটন, আসামী গ্রেফতার করলো পিবিআই গাজীপুর।

 

মামলার ঘটনার সাথে প্রত্যক্ষভাবে জড়িত আসামী মোঃ দুখু মিয়া @ সুমন (২২), পিতা-মোঃ লিটন মিয়া, মাতা-মোছাঃ দেলোয়ারা খাতুন, সাং-শহরটোক, থানা-কাপাসিয়া, জেলা-গাজীপুরকে ২৫ শে আগষ্ট ২০২১ ভোর অনুমান ০৪.২০ ঘটিকায় টোক বাইপাস এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

 

গত ইং ২৫/০৮/২০২০ ইং তারিখ সকাল ০৮.০০ ঘটিকায় ইদ্রিস (৩০), পিতা-মফিজ উদ্দিন, সাং-সালয়াটেকি, থানা-কাপাসিয়া, জেলা-গাজীপুর এর মৃত দেহ সালুয়াটেকি সাকিনস্থ এজাহারনামীয় ১নং আসামী সৈয়দ জহির আহসান জাহিদ এর নানার বাড়ীর দক্ষিণ পাশে পুকুর পাড়ে গলায় ধারালো অস্ত্র দ্বারা গুরুতর জখম অবস্থায় পাওয়া যায়। এ সংক্রান্তে নিহতের মাতা মোর্শেদা বাদী হয়ে কাপাসিয়া থানায় এজাহারনামীয় ১০ জন ও অজ্ঞাতনামা ০৩/০৪ জন আসামীর বিরুদ্ধে কাপাসিয়া থানায় মামলা নং-২৮, তারিখ-২৫/০৮/২০২০ ইং ধারা- ৩০২/৩৪ পেনাল কোড রুজু করেন।

 

মামলাটি কাপাসিয়া থানা পুলিশ প্রায় ০৪ মাস তদন্ত করে এবং তদন্তাধীন অবস্থায় পুলিশ হেডকোয়ার্টার্স, ঢাকার মাধ্যমে পিবিআই গাজীপুর জেলায় পরবর্তী তদন্তের জন্য প্রেরণ করে।

 

ডিআইজি পিবিআই জনাব বনজ কুমার মজুমদার. বিপিএম (বার), পিপিএম এর সঠিক তত্ত্বাবধন ও দিক নির্দেশনায় পিবিআই গাজীপুর ইউনিট ইনচার্জ পুলিশ সুপার, জনাব মোহাম্মদ মাকছুদের রহমান এর সার্বিক সহযোগীতায় মামলাটির তদন্তকারী কর্মকর্তা পুলিশ পরিদর্শক জনাব মোঃ হাফিজুর রহমান. পিপিএম মামলাটি তদন্ত করেন।

 

আসামীকে জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে, এজাহারনামীয় ১নং আসামী সৈয়দ জহির আহসান জাহিদ এর সাথে তার নানার বাড়ীর সম্পত্তির ওয়ারিশ নিয়ে তার মামা রবিন ভূইয়া এর সাথে বিরোধ দেখা দেয়। ভিকটিম ইদ্রিস এজাহারনামীয় ১নং আসামী জাহিদের পক্ষ নিয়ে তাকে জমি দখলে সহযোগীতা করে। পরবর্তীতে আসামী সৈয়দ জহির আহসান জাহিদ এর সাথে ইদ্রিস এর মনোমালিন্য হলে ইদ্রিস আলী আসামী সৈয়দ জহির আহসান জাহিদ এর মামা রবিন ভঁূইয়ার সাথে যোগ দেয়। পরবর্তীতে ঘটনার ০৩ (তিন) দিন আগে ঘটনাস্থলের পাশে এজাহারে উল্লেখিত আসামী সৈয়দ জহির আহসান জাহিদ তার লাইসেন্সকৃত পিস্তল দিয়ে টোক বাইপাসে ভিকটিম ইদ্রিসকে ভয় দেখায়। এই সুযোগে এজাহারে উল্লেখিত আসামী সৈয়দ জহির আহসান জাহিদ এর মামা রবিন ভূইয়া গ্রেফতারকৃত আসামী মোঃ দুখু মিয়া @ সুমন ও তার সহযোগী আসামীদের সাথে ইদ্রিসকে হত্যা করার পরিকল্পনা করে ১২ লক্ষ টাকা চুক্তি করে। ঘটনার দিন গত ইং ২৪/০৮/২০২০ তারিখ দিবাগত রাত্র ০২.০০ ঘটিকার সময় আসামীরা ইদ্রিসকে ইয়াবা ট্যাবলেট আনার জন্য মোবাইল ফোনে ঘটনাস্থলে ডেকে এনে গলা চেপে ধরে ছুরি দিয়ে গলায় আঘাত করে ও এলোপাথারীভাবে মারপিট করে ইদ্রিসকে হত্যা করে এজাহারে উল্লেখিত আসামী সৈয়দ জহির আহসান জাহিদ এর নানা বাড়ীর যে ঘরে মাঝে মধ্যে সৈয়দ জহির আহসান জাহিদ ঘুমাতো ঐ ঘরের পিছনে পুকুরপাড়ে ঘটনাস্থলে ইদ্রিস এর মৃতদেহ ফেলে রেখে চলে যায়।

 

এ বিষয়ে পিবিআই এর পুলিশ সুপার জনাব মোহাম্মদ মাকছুদের রহমান বলেন এজাহারে উল্লেখিত জহির আহসান জাহিদ তার মায়ের ওয়ারিশ প্রাপ্ত সম্পত্তি নেওয়া জন্য তার মামা রবিন ভূইয়াকে বললে তার মামা রাজি না হওয়ায় সে স্থানীয় রফিক এবং রফিকের ভাগিনা ভিকটিম ইদ্রিস আলীর সহযোগীতা নেয়। এই সুযোগে ভিকটিম ইদ্রিস আলী জাহিদের দখলকৃত সম্পত্তি বিক্রয়ের কথা বলে বিভিন্ন মানুষের কাছ থেকে এজাহারনামীয় আসামী জাহিদের কথা বলে তার অগোচরে টাকা নেয়। এই বিষয়টি জাহিদ বুঝতে পারায় ভিকটিম ইদ্রিস ও তার মামা রফিকের সাথে তার বিরোধ হয়। ভিকটিম ইদ্রিস ও তার মামা রফিক পুনরায় এজাহার নামীয় আসামী জাহিদের মামা রবিন ভূইয়ার পক্ষ অবলম্বন করে। পরবর্তীতে রবিন ভূইয়া তার পৈত্রিক সম্পত্তি তার ভাগ্নে এজাহারনামীয় আসামী সৈয়দ জহির আহসান জাহিদ কে না দেওয়ার উদ্দেশ্যে গ্রেফতারকৃত আসামী মোঃ দুখু মিয়া @ সুমন সহ তার সহযোগী আসামীদের দিয়ে ভিকটিম ইদ্রিসকে হত্যা করে মৃত দেহ রবিন ভূঁইয়ার নিজের বাড়ীর যে ঘরে মাঝে মধ্যে সৈয়দ জহির আহসান জাহিদ ঘুমাতো ঐ ঘরের পিছনে পুকুরপাড়ে ঘটনাস্থলে ইদ্রিস এর মৃতদেহ ফেলে রেখে চলে যায়।

 

আসামী মোঃ দুখু মিয়া @ সুমন (২২), পিতা-মোঃ লিটন মিয়া, মাতা-মোছাঃ দেলোয়ারা খাতুন, সাং-শহরটোক, থানা-কাপাসিয়া, জেলা-গাজীপুরকে ইং ২৫/০৮/২০২১ তারিখ বিজ্ঞ আদালতে সোপর্দ করা হলে উক্ত আসামী নিজেকে এবং ঘটনার সাথে জড়িত অপর আসামীদের নাম উল্লেখ করে বিজ্ঞ আদালতে ফৌঃ কাঃ বিঃ ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তি মূলক জবানবন্দি প্রদান করে।

 

তদন্তকারী কর্মকর্তা ঃ পুলিশ পরিদর্শক জনাব মোঃ হাফিজুর রহমান পিপিএম, পিবিআই গাজীপুর জেলা।

 

তদন্ত তদারকি কর্মকর্তা ও পিবিআই গাজীপুর ইউনিট ইনচার্জ, পুলিশ সুপার জনাব মোহাম্মদ মাকছুদের রহমান

পোস্টটি সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটেগরির আরও খবর