1. muktirshongbad@gmail.com : 20dailymuktirshongbadbd.com :
  2. mdkaiumjsc01643@gmail.com : Kaium Hossain :
  3. ramjanbhuiyan84@gmail.com : ramjanbhuiyan :
বৃহস্পতিবার, ১৭ জুন ২০২১, ১১:০৬ পূর্বাহ্ন
নোটিশঃ
বহুল জনপ্রিয় দৈনিক মুক্তির সংবাদ অনলাইন পত্রিকায় সংবাদকর্মী নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে।  বাংলাদেশে বিভিন্ন জেলায়, উপজেলায়,দৈনিক মুক্তির সংবাদ পত্রিকা সংবাদকর্মী নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে। সারা বাংলাদেশে বিভিন্ন জেলায়, উপজেলায়, জেলা ব্যুরো প্রধান ও বিভাগীয় ব্যুরো প্রধানে কাজ আগ্রহী প্রার্থীগণ সিভি পাঠাতে পারেন। ন্যূনতম যোগ্যতা এস এস সি পাশ।চূড়ান্ত নির্বাচন প্রক্রিয়া:রিক্রুটিং টিম কোন প্রকার একাডেমিক পরীক্ষার ফল বিবেচনা করবে না। কর্মঠ, সৎ ও কর্তৃপক্ষের প্রতি অনুগত প্রার্থীদের বাছাই করা হবে।E-mail :  muktirshongbad@gmail.com যোগাযোগ নাম্বার:01752602939/01710006400 ।সম্পাদক ও প্রকাশক,মোঃ মাসুদ মৃধাঃ 01933609066

আশ্রয় কেড়ে নিচ্ছে সড়ক বিভাগ, দিশেহারা ভুমিহীন ২৮ পরিবার

  • খবর পাবলিসের সময় বৃহস্পতিবার, ৭ জানুয়ারী, ২০২১
  • ৫২ বার পোস্টটি পড়া হয়েছে

 

রাজু আহমেদ নন্দীগ্রাম বগুড়া পতিনিধি

চলমান রাস্তা প্রসস্থ কাজের জন্য বগুড়া-নাটোর মহাসড়কের পাশে বসবাস করা ভ‚মিহীন পরিবারগুলোর পুনর্বাসন না করেই বসত-বাড়ি সরিয়ে নিতে ১০ দিনের সময় বেঁধে দিয়েছে সড়ক বিভাগ। বগুড়ার নন্দীগ্রাম পৌরসভার ২নং ওযার্ডের ওমরপুর মহাসড়ক-পাড়ার ভ‚মিহীন পরিবারগুলো এ অভিযোগ করেন। পুনর্বাসন না করায় থাকা-খাওয়া এমনকি ঘুমানোর জায়গা পর্যন্ত থাকছেনা জানিয়ে ২৮ পরিবার একসঙ্গে আত্মহত্যার হুমকি দিয়ে গতকাল বুধবার উপজেলা পরিষদে গিয়ে নির্বাহী অফিসার (ইউএনও), উপজেলা চেয়ারম্যান, পৌরসভার মেয়র, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান বরাবর পৃথক মানবিক আবেদন (দরখাস্থ) প্রদান করেছে।
ভ‚মিহীনরা বলেন, রাস্তার সাথেই টং ঘরে দীর্ঘদিন ধরে আমরা বসবাস করছি। গভীর রাতে ট্রাক উল্টে ঘুমন্ত পুরো পরিবারের বুকের উপর আছড়ে পড়েছিল। গাড়ির চাকায় পৃষ্ট হয়েছে আপনজন। মৃত্যু আতংক নিয়েই আমরা বসবাস করছি। আগামী ১৫ তারিখের পর থেকে থাকা-খাওয়া এমনকি ঘুমানোর জায়গাও থাকবেনা। আশ্রয়টুকু কেড়ে নিচ্ছে সড়ক বিভাগ। বসত বাড়ি সরিয়ে নিতে ১০ দিনের সময় বেঁধে দিয়েছে। ভ‚মিহীনরা আকুতি জানিয়ে বলেন, আমরা গরীব অসহায়, দিন আনি দিন খাই, আমাদের কারো এক শতক জায়গা পর্যন্ত নেই। আমরা বারবার আবেদন জানিয়েছি, কিন্তু কেউ কোন প্রকার নজর দেয়নি। এখন আমাদের বাড়ি-ঘর ভেঙে দিলে আমরা কোথায় যাব, ১০ দিনের মধ্যে আমাদের পূনর্বাসনের জন্য আবেদন (দরখাস্থ) করেছি, এই আবেদন আমাদের জীবনের শেষ আবেদন। এরপরও যদি আমাদের কোন ব্যবস্থা না হয়, বাধ্য হয়ে ২৮ পরিবারের সদস্যরা বিছানা বালিশ নিয়ে মহাসড়কে শুয়ে পরবো। সরকার যদি ঘুমানোর জায়গা না দেয়, আমাদের উপর দিয়ে গাড়ি চালিয়ে চিরতরে ঘুমিয়ে দিবেন। আমরা আত্মহত্যার পথ বেছে নিব। এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করার আশা দিয়েছেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোছা. শারমিন আখতার

পোস্টটি সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটেগরির আরও খবর