1. muktirshongbad@gmail.com : 20dailymuktirshongbadbd.com :
  2. mdkaiumjsc01643@gmail.com : Kaium Hossain :
  3. ramjanbhuiyan84@gmail.com : ramjanbhuiyan :
মঙ্গলবার, ০৩ অগাস্ট ২০২১, ০৭:৫৫ পূর্বাহ্ন
নোটিশঃ
বহুল জনপ্রিয় দৈনিক মুক্তির সংবাদ অনলাইন পত্রিকায় সংবাদকর্মী নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে।  বাংলাদেশে বিভিন্ন জেলায়, উপজেলায়,দৈনিক মুক্তির সংবাদ পত্রিকা সংবাদকর্মী নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে। সারা বাংলাদেশে বিভিন্ন জেলায়, উপজেলায়, জেলা ব্যুরো প্রধান ও বিভাগীয় ব্যুরো প্রধানে কাজ আগ্রহী প্রার্থীগণ সিভি পাঠাতে পারেন। ন্যূনতম যোগ্যতা এস এস সি পাশ।চূড়ান্ত নির্বাচন প্রক্রিয়া:রিক্রুটিং টিম কোন প্রকার একাডেমিক পরীক্ষার ফল বিবেচনা করবে না। কর্মঠ, সৎ ও কর্তৃপক্ষের প্রতি অনুগত প্রার্থীদের বাছাই করা হবে।E-mail :  muktirshongbad@gmail.com যোগাযোগ নাম্বার:01752602939/01710006400 ।সম্পাদক ও প্রকাশক,মোঃ মাসুদ মৃধাঃ 01933609066

৯ ডিসেম্বর নাজিরহাট হানাদারমুক্ত দিবস

  • খবর পাবলিসের সময় বুধবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০২০
  • ৩৪ বার পোস্টটি পড়া হয়েছে

মোঃ আছিফুর রহমান

১৯৭১সালের ৯ ডিসেম্বর নাজিরহাট হানাদার মুক্ত হয়েছিল। সেই দিন থেকে এই দিবসটি পালন করে আসছেন মুক্তিযোদ্ধারা। উত্তর চট্টগ্রামের রণাঙ্গন নাজিরহাটে পাকহানাদার বাহিনীর সাথে মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মুখ যুদ্ধ হয়।

এদিন ভোরে মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে টিকতে না পেরে পাক হানাদার বাহিনী পিছু হটে। পাক হানাদার বাহিনী চলে যাওয়ার পর শুরু হয় মুক্তিকামী ছাত্রজনতা এবং মুক্তিযোদ্ধাদের আনন্দ উল্লাস।

দিনভর ফটিকছড়ি ও হাটহাজারীর বিভিন্ন এলাকা থেকে মুক্তিযোদ্ধা এবং ইস্ট বেঙ্গল রেজিমেন্টের জোয়ানেরা চাঁদের গাড়িতে করে কামান এবং অস্ত্র সস্ত্রে সজ্জিত হয়ে দেশের মানচিত্র অংকিত পতাকা নিয়ে আনন্দ উল্লাস করে নাজিরহাটে সমবেত হয়। সেই দিন
ওখানে চলছিল বিজয়ের উৎসব।

গোপন সংবাদ পেয়ে পলাতক পাক হানাদার বাহিনী সন্ধ্যায় হাটহাজারীর অদুদিয়া মাদ্রাসার সামনে থেকে ৩/৪ টি বাসে করে নাজিরহাটে আসে। তারা উল্লাসরত মুক্তিযোদ্ধা ও নিরীহ জনতার উপর অতর্কীত হামলা চালায়। শুরু হয় সম্মুখ যুদ্ধ।

এ সময় যুদ্ধে মুক্তিযোদ্ধার নায়েক তফাজ্জল হোসেন(বরিশাল), সিপাহী নুরুল হুদা(কুমিল্লা), সিপাহী অলি আহম্মদ (খুলনা),সিপাহী নুরুল ইসলাম (সন্দ্বীপ),সিপাহী মানিক মিয়া(চট্টগ্রাম),ফোরক আহম্মদ(নাজিরহাট), হাসিনা খাতুন (নাজিরহাট), আবদুল মিয়াা(নাজিরহাট), নুরুল আবছার (কুমিল্লা),মুক্তিযোদ্ধা মুজিবুল হক(ফরহাদাবাদ) ও অজ্ঞাতনামা একজনসহ ১১জন শহীদ হন।
হাটহাজারী উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ নুরুল আলম জানান, মুলত: ১৯৭১সালের ৯ ডিসেম্বর নাজিরহাট নয় হানাদার মুক্ত হয়েছিল ফটিকছড়ি। নাজিরহাট ছিল মুক্তিযোদ্ধাদের গেরিলা চেকপোস্ট। ৯ ডিসেম্বর ফটিকছড়ি হানাদার মুক্ত হয়েছিল। সে উপলক্ষে নাজিরহাটের সুন্নিয়া মাদরাসায় ফটিকছড়ি ও হাটহাজারীর বিভিন্ন এলাকা থেকে মুক্তিযোদ্ধারাসহ সাধারণ জনতা এসে দিবসটি উদযাপনের জন্য আয়োজন করা হয়েছিল। কিন্তু সে সময় নাজিরহাট বাসস্টেশন গেরিলা দায়িত্বরতরাসহ অনেক মুক্তিযোদ্ধা একত্রে নাজিরহাট সুৃন্নিয়া মাদরাসায় আসার জন্য দাড়ালে তখন তাদেরকে দেখতে ছুটে আসে অনেক নারী পুরুষ। এমন সময় জয় বাংলা স্লোগান দিয়ে সাদা পতাকা নিয়ে পাক হানাদার বাহিনীর কয়েকটি বাসে আসতে দেখে তখন মুক্তিযোদ্ধারা মনে করছিল পাক হানাদার বাহিনী আর্তসর্মথনের জন্য আসছে। কিন্তু তা না পাক সেনারা এসেই অর্তকিত গুলি বর্ষণ করে। এসময় নাম অজানা অনেক নারী পুরুষ নিহত হয়। তার মধ্যে আমরা ১১ জনের নাম জানতে পারলেও অজ্ঞাত অনেকসহ সবাইকে গণকবর শায়িত করা হয়। তখন থেকেই নাজিরহাট হানাদার মুক্ত দিবস পালন করা হয়।

পাক হানাদার বাহিনী ঐদিন ৯ ডিসেম্বর থেকে ১৩ ডিসেম্বর পর্যন্ত নাজিরহাট,ফটিকছড়ি এবং হাটহাজারীর বিভিন্ন এলাকায় অগ্নিসংযোগ,লুটতরাজ,নাজিরহাট হালদা নদীর সেতু ধ্বংস,হত্যাযজ্ঞসহ নারকীয় কর্মকান্ড চালায়। পাক বাহিনীর মেশিনগানের গুলিতে শহীদ ১১জনকে নাজিরহাট বাসষ্টেশনে কবর দেওয়া হয়।
প্রত্যেক বছর নাজিরহাট মুক্ত দিবসে হাটহাজারী ,ফটিকছড়ির মুক্তিযোদ্ধারা শহীদের এ কবরে পুষ্প অর্ঘ্য দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করে। তাছাড়াও এই দিবসে ১১ জনের কবরে প্রশাসনসহ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ এখানে নানা অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।
হাটহাজারী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মাদ রুহুল আমীন বলেন, মহামারী করোনা ভাইরাসের কারণে সীমিত পরিসরে শহীদদের স্মরণে খতমে কোরাআন ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হবে।

পোস্টটি সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটেগরির আরও খবর