1. muktirshongbad@gmail.com : 20dailymuktirshongbadbd.com :
  2. mdkaiumjsc01643@gmail.com : Kaium Hossain :
  3. ramjanbhuiyan84@gmail.com : ramjanbhuiyan :
বুধবার, ২৮ জুলাই ২০২১, ০২:০৯ অপরাহ্ন
নোটিশঃ
বহুল জনপ্রিয় দৈনিক মুক্তির সংবাদ অনলাইন পত্রিকায় সংবাদকর্মী নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে।  বাংলাদেশে বিভিন্ন জেলায়, উপজেলায়,দৈনিক মুক্তির সংবাদ পত্রিকা সংবাদকর্মী নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে। সারা বাংলাদেশে বিভিন্ন জেলায়, উপজেলায়, জেলা ব্যুরো প্রধান ও বিভাগীয় ব্যুরো প্রধানে কাজ আগ্রহী প্রার্থীগণ সিভি পাঠাতে পারেন। ন্যূনতম যোগ্যতা এস এস সি পাশ।চূড়ান্ত নির্বাচন প্রক্রিয়া:রিক্রুটিং টিম কোন প্রকার একাডেমিক পরীক্ষার ফল বিবেচনা করবে না। কর্মঠ, সৎ ও কর্তৃপক্ষের প্রতি অনুগত প্রার্থীদের বাছাই করা হবে।E-mail :  muktirshongbad@gmail.com যোগাযোগ নাম্বার:01752602939/01710006400 ।সম্পাদক ও প্রকাশক,মোঃ মাসুদ মৃধাঃ 01933609066

রাঙ্গাবালীর চরমোন্তাজে এক নারীর অত্যাচারে অতিষ্ট গ্রামবাসী।

  • খবর পাবলিসের সময় সোমবার, ২৩ নভেম্বর, ২০২০
  • ৬৮ বার পোস্টটি পড়া হয়েছে

মোঃমাজহারুল ইসলাম মলি
গলাচিপা(পটুয়াখালী)প্রতিনিধি

পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালীর চর মোন্তাজ ইউনিয়নে মধ্য বয়সী নারী মোসা. হেলেনা বেগম এর চরিত্রগত কারণসহ নানা কু-কর্মে অতিষ্ট এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও সর্বস্তরের জণগন। চর মোন্তাজ ইউনিয়নের ১নম্বর ওয়ার্ডের চরবেষ্টিন গ্রামের ইউসুফ শরিফের মেয়ে হেলেনা বেগম। তার বিরুদ্ধে প্রেমের ফাঁদে ফেলে প্রতারণার অভিযোগ উঠেছে। এলাকাবাসীরা জানান, হেলেনা বেগম একে একে তিনটি বিবাহ করেছেন এবং সে একটি খারাপ প্রকৃতির মেয়ে। বর্তমানে হেলেনা তার মেয়ের শশুর ইউপি সদস্য মো. আনোয়ার হোসেনকে নিয়ে চরবেস্টিন বাজারে বসবাস করেন এ নিয়েও ছেলে ও বাবার মধ্যে বিভিন্ন ঝামেলা হয়েছে বলে জানান এলাকাবাসী। আবুল বাসার নামে এলাকার একজন বলেন, আমার চোখে দেখা তিনটি সংসারে জড়িত এবং সে চরিত্রগত খারাপ কাজ করে বেড়ান। চরবেষ্টিন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হারুন অর রশিদ মাস্টারকে সে তার প্রেমের ফাঁদে ফেলে বিবাহ করে ও তার বিরুদ্ধে ৪ টি মামলা করে তার সকল সম্পত্তি ও টাকা পয়সা হাতিয়ে নেন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এলাকার সাধারণ জনগণ জানান, এই হেলেনা বেগম বিত্ত্ববান কোন ভালো লোক দেখলেই তার পিছনে লাগে এবং তাকে যেভাবেই হোক তার কাছে টানে। কোন প্রকার প্রতিবাদ করতে গেলে হেলেনা বেগম ও তার ভাই বোন মিলে চরবেস্টিন বাজারে বসে অনেককে মারধোর করেন।

হারুন অর রশীদ মাস্টারসহ এক নম্বর ওয়ার্ডের গ্রাম পুলিশ ও এলাকার সাধারণ জনগন জানান, তিনি চরবেস্টিন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক তাকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে বিবাহ করতে বাধ্য করে এবং পরে আদালতের মাধ্যমে ডিভোর্স হয়। হেলেনা আসলে একটা খারাপ প্রকৃতির মহিলা, তাই সে দেশনেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে সুষ্ঠ বিচার চান। চরবেষ্টিন ওয়ার্ডের গ্রাম পুলিশ আলী আহম্মদ জানান, তার জানামতে হেলেনার বাবা হেলেনাকে বাল্য বিবাহ দেয় কিন্তুু সে বিবাহ বেশি দিন টেকেনি পরে আ. হাইর সাথে বিবাহ হয় এবং তাদের ঘরে ছেলে মেয়ে আছে। তারপরেও হারুন মাস্টারের সাথে বিবাহ হয় এবং সে বিবাহ এক বছরও টেকেনি বর্তমানে তার মেয়ের শশুরের সাথে থাকে বলে শোনা যায়। এঘটনা চরমোন্তাজ পুলিশ ফারিতে হেলেনার বিরুদ্ধে মেয়ের শাশুরি অভিযোগ করেছেন।
এ ব্যাপারে হেলেনা বেগমের সাথে কথা বলতে চাইলে তিনি বলেন, আমার স্বামী মো. হারুন অর রশীদ মাস্টার তার সাথে আমার কোন ডিভোর্স হয়নি। পরে তার কাছে তার মেয়ের শশুরকে নিয়ে যে গুঞ্জন শোনা যায় এমন কথা জানতে চাইলে, আমার মেয়ের শশুর আত্মীয় সে আমার ঘরে আসতেই পারে এতে তো আমি দোষের কিছুই দেখিনা। পক্ষান্তরে হেলেনার সাথে বিবাহর ব্যাপারে ইউপি সদস্য আনোয়ার হোসেন এর কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান, এ ধরনের ঘটনা তার সাথে ঘটেনি। এটি একটি সম্পূর্ণ গুজব।
এ ব্যাপারে চর মোন্তাজ ইউপি চেয়ারম্যান মো. হানিফ মিয়া বলেন, আমি জানি হারুন মাষ্টার এর সাথে হেলেনার বিবাহ বিচ্ছেদ হয়ে গেছে। বর্তমান সমাজে এ রকম খারাপ ভাল থাকেই।

পোস্টটি সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটেগরির আরও খবর