1. muktirshongbad@gmail.com : 20dailymuktirshongbadbd.com :
  2. mdkaiumjsc01643@gmail.com : Kaium Hossain :
  3. ramjanbhuiyan84@gmail.com : ramjanbhuiyan :
বুধবার, ১৬ জুন ২০২১, ০৫:০০ পূর্বাহ্ন
নোটিশঃ
বহুল জনপ্রিয় দৈনিক মুক্তির সংবাদ অনলাইন পত্রিকায় সংবাদকর্মী নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে।  বাংলাদেশে বিভিন্ন জেলায়, উপজেলায়,দৈনিক মুক্তির সংবাদ পত্রিকা সংবাদকর্মী নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে। সারা বাংলাদেশে বিভিন্ন জেলায়, উপজেলায়, জেলা ব্যুরো প্রধান ও বিভাগীয় ব্যুরো প্রধানে কাজ আগ্রহী প্রার্থীগণ সিভি পাঠাতে পারেন। ন্যূনতম যোগ্যতা এস এস সি পাশ।চূড়ান্ত নির্বাচন প্রক্রিয়া:রিক্রুটিং টিম কোন প্রকার একাডেমিক পরীক্ষার ফল বিবেচনা করবে না। কর্মঠ, সৎ ও কর্তৃপক্ষের প্রতি অনুগত প্রার্থীদের বাছাই করা হবে।E-mail :  muktirshongbad@gmail.com যোগাযোগ নাম্বার:01752602939/01710006400 ।সম্পাদক ও প্রকাশক,মোঃ মাসুদ মৃধাঃ 01933609066

ভয়াল ১৫ নভেম্বর আজ

  • খবর পাবলিসের সময় রবিবার, ১৫ নভেম্বর, ২০২০
  • ১২৬ বার পোস্টটি পড়া হয়েছে


সোহরাব বরগুনা সংবাদদাতা:
আজ ভয়াল ১৫ নভেম্বর ২০০৭ সালের এই দিনে মহা প্রলয়ংকারী ঘূর্ণিঝড় ও জলোচ্ছ্বাস বরগুনা সহ উপকূলীয় অঞ্চলে ব্যাপক ধ্বংসযজ্ঞ চালায়।
সিডরের ১৩ বছর, কাঁদায় সেই প্রলয়ের স্মৃতি।
সিডর স্মৃতির এই অর্তনাদ হয়তো কোনদিনও থামবে না।
১৫ নভেম্বর এই দিনে উপকূলের আঘাত হানে প্রলয়ঙ্করী ঘূর্ণিঝড় ‘সিডর’। ভয়াল সে রাতের কথা মনে পড়লে আজও শিওরে ওঠেন উপকূলের লাখো মানুষ।
সুন্দরবন অতিক্রম করে ঘূর্ণিঝড় সিড়র সে রাতে আঘাত হানে লন্ডভন্ড করে দেয় বরগুনা জেলাকে। স্মরণকালের ভয়াবহ সেই ঘূর্ণিঝড় আজও এক বিভীষিকা হয়ে গেঁথে আছে উপকূলের মানুষের মনে।
২০০৭ সালের এই দিনে ঘন্টায় ২৬০ কিলোমিটার বেগে বাতাসের সাথে স্বাভাবিক জোয়ারের চেয়ে ১০থেকে ১২ ফুট উচ্চতার পানি আঘাত হানে বরগুনায়। পানির চাপে পায়রা বিষখালী ও বলেশ্বর নদী পাড়ের বেড়িবাঁধ ভেঙে ভাসিয়ে নিয়ে যায় ৬৮ হাজার ৩৭৯ ঘরবাড়ি। পানিতে তলিয়ে নষ্ট হয় ৩৭ হাজার ৬৪ একর জমির ফসল, আর প্রাণ হারায় এ জেলার ১৪৩৫ জন মানুষ। বিধ্বস্ত গ্রাম গুলোতে ঘরহারা মানুষ গুলোর সবাই সরকারি ভাবে ঘর না পেলেও নিজেদের প্রচেষ্টায় সাধ্যমত তৈরি করেছেন আবাসস্থল। তবে এখনো প্রতি মাসে বড় জোয়ারের পানি ঢুকে ভাসিয়ে নিয়ে যায় আসবাপত্র খাদ্য সামগ্রী সহ সবকিছু। এর কারণ এখনও নদী পাড় গুলোতে বিধ্বস্ত অবস্থায় আছে কিলোমিটারের পর কিলোমিটার বেড়িবাঁধ। ঘূর্ণিঝড় সিডর বরগুনা জেলার প্রায় অর্ধ লাখেরও বেশি ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত হয়। ঘূর্ণিঝড়ের পর মাত্র ৫ হাজার পরিবারকে তাদের বসতঘর দেয়া হয়, বাকিরা নিজেদের প্রচেষ্টায় তৈরি করে নিয়েছেন তাদের মাথা গোঁজার ঠাঁই এছাড়া নদী পাড় গুলোতে ৩০০ কিলোমিটারের বেশি বেড়িবাঁধ বিধ্বস্ত হয়। যার স্থায়ী মেরামত কাজ সম্পন্ন হয়েছে বলে দাবি করছে পানি উন্নয়ন বোর্ড। তবে উপকূলের নদীগুলোতে এখনও দেখা মিলছে এমন বিধ্বস্ত বেরিবাদের চিত্র।

স্থানীয়দের দাবি সিডরের মতো প্রলয়ংকারী ঝড়ে বেঁচে যাওয়া বিপন্ন জনপদের মানুষেরা আবারও শুরু করেন জীবন যুদ্ধ। সব কেড়ে নেওয়া নিস্ব মানুষের বেঁচে থাকার সে সংগ্রামের ১৩ বছর পেরিয়েছে। তবে এখনও পুরোপুরি ঘুরে দাড়াতে পারেননি উপকূলের লাখো মানুষ। ঐ সমস্ত ঝুঁকিপূর্ণ বেড়িবাঁধ নির্মাণের দাবি জানান নদী ভাঙ্গন পারের ভুক্তভোগীরা।

এ বিষয়ে জেলা প্রশাসক মোস্তাইন বিল্লাহ জানালেন, ১৫ই নভেম্বর বরগুনার ইতিহাসের একটি মর্মান্তিক দিন।
২০০৭ সালের ভয়াবহ সিডরে আঘাত হেনেছিল বরগুনায়। এতে প্রাই দের হাজার মানুষ মৃত্যুবরণ করেন। সরকারের পক্ষ থেকে যে সকল ব্যক্তিদেরকে তারা পুর্নবাসনের উদ্যোগ নিয়েছিলেন । ইতিমধ্যে তাদেরকে পূর্নবাসিত করা হয়েছে। কিছু কিছু বাদ যেগুলো এখনো জলোচ্ছ্বাস ঠেকানো মত নেই। সেগুলো উচো করার জন্য পানি উন্নয়ন বোর্ড কে নির্দেশ দিয়েছেন তিনি ।

পোস্টটি সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটেগরির আরও খবর